Thursday , November 26 2020
Breaking News

নাগরদোলার চড়লে মাথা ঘুরায় কেন?

নাগরদোলার চড়লে মাথা ঘুরায় কেন?
প্রথমে আমরা একটি এক্সপেরিমেন্ট করব। আমরা একটি গ্লাসে প্রায় ১/৩ অংশ পানি নিব। তারপর গ্লাসটিকে খুব দ্রুত ঘুরানো শুরু করব। কিছুক্ষণ ঘুরিয়ে গ্লাসটিকে থামিয়ে দিব! কিন্তু লক্ষ্য কর, গ্লাসটিকে থামিয়ে দেওয়ার পরও কিছুক্ষণ পর্যন্ত সেই পানি আগের মতই ঘুরছিলো। আস্তে আস্তে এই ঘুরা বন্ধ হয়ে এসেছে। একসময় পানি স্থির হয়ে গেছে।
আমাদের কানে একটি জায়গা আছে যাকে বলে ভেস্টিবুলার সিস্টেম। এতে কিছু লিকুইড জাতীয় পদার্থ থাকে। আমরা যখন কোনো একদিকে হেলে পড়ি তখন এই লিকুইড ও সেই দিকে হেলে পড়ে। ফলে ব্রেইন খবর পায় যে দেহ এই দিকে হেলে পড়েছে। অর্থাৎ কানের ভিতরের এই লিকুইড আমাদের ভারসাম্য রক্ষা করে। এখন মনে কর তুমি নাগরদোলার দুলছ। তখন তোমার কানের ভিতরের ফ্লুইড ঘুরা শুরু করল। তারপর তুমি যখন নাগরদোলা থেকে নেমে গেলে তখনও কানের ভিতরের ফ্লুইড কিন্তু স্থির হয়নি। গ্লাসের পানির মত। ঘুরানোর পর কিছু সময় পর্যন্ত তোমার কানের এই ফ্লুইড ঘুরতে থাকবে। তাই তোমার ব্রেইন মনে করবে যে তুমি এখনো ঘুরছ। তাই সে ভারসাম্য রক্ষা করার জন্য তোমার দেহকে বিপরীত দিকে ঠেলে দিবে। তাই অনেকে নাগর দোলা থেকে নেমে পড়ে যায়। আর ব্রেইন যেহেতু চোখের দেখা (স্থির আছে) আর কানের কথা (এখনো ঘুরছে) এর মাঝে সমন্বয় করতে না পারে তখনই মাথা ঘুরানো শুরু করে। সমন্বয় করতে না পারলে অনেকের বোমিও হতে পারে।
শুধু নাগরদোলা না, যে সকল জায়গায় কানের এই ফ্লুইড ঘুরতে পারে সেই সকল জায়গায়ই মাথা ঘুরাতে পারে। যেমন বারবার বাস যদি ব্রেক করে এগিয়ে যায় সেখানে, কেউ যদি কোনো কিছুকে কেন্দ্র করে অনেকক্ষণ ঘুরে তাহলে ইত্যাদি।

About marianews24

Check Also

ইবন সাহল – ইতিহাসের পাতায় হারিয়ে যাওয়া

ইবন সাহল – ইতিহাসের পাতায় হারিয়ে যাওয়া ====================== আবু সা’দ আল আ’লা ইবন সাহল এর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *